ব’লাৎকারের পর কোরআন হাতে ছাত্রকে শপথ করালেন মাদরাসাশিক্ষক!

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে এক মাদারাসাছাত্রকে ব’লাৎ’কারের অ’ভিযোগে মাদরাসাশিক্ষক মোহতামিম ইয়াকুব আলীর বিরুদ্ধে মা’মলা দায়ের করা হয়েছে।

এ ঘটনায় মাদরাসার থেকে ওই শিক্ষককে ব’হিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পরিচালনা পর্ষদ।কুলিয়ারচর বরখা’রচর গ্রামের নূরানী হাফিজিয়া আবাসিক মাদরাসায় এ ঘটনা ঘটে।

গত ১ এপ্রিল গভীর রাতে ওই শিক্ষার্থীকে ঘুম থেকে তুলে নিজ কক্ষে নিয়ে ব’লাৎকার করেন মোহতামিম ইয়াকুব আলী। ব’লাৎকারের পর ছাত্রকে মে’রে ফেলার ভ’য়’ভীতি দেখিয়ে এ ঘটনা কাউকে না বলার জন্য কোরআন শরীফে হাতে দিয়ে শপথ করান।

এ ঘটনার পর অসুস্থ হয়ে গত দুদিন আগে ওই শিক্ষার্থী বাড়িতে আসে। এরপর মাদরাসায় যেতে তাকে জো’র করলে সে আর মাদরাসায় যাবে না বলে জানায়। তারপর পরিবারের পক্ষ থেকে মাদরাসায় যেতে বেশি চাপ দিলে সে মাকে নিয়ে থানায় চলে যায় বিচার চাইতে।

পরে মা বিষয়টি বুঝতে না পেরে সন্তানকে বাড়ি নিয়ে আসতে চাইলে সন্তান মাকে নিয়ে মাদরাসার পরিচালনা পর্ষদের সভাপতির কাছে গিয়ে ঘটনা খুলে বলে। এ ঘটনা জানাজানির পর ওই শিক্ষক মাদরাসা ছেড়ে পা’লিয়েছেন।

এ ঘটনায় শিশুটির বাবা গত বুধবার রাতে বাদী হয়ে কুলিয়ারচর থানায় ইয়াকুব আলীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নি”র্যা’ত’ন দমন আইনে মা’মলা দায়ের করেছেন।এলাকাবাসী জানায়, বিগত কয়েক বছর আগেও এ মাদরাসায় আবুল হাসিম নামের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে এ ধরনের অ’ভিযোগ পাওয়া যায়। পরে ওই শিক্ষক রাতে পা’লিয়ে যায়।মাদরাসার পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি সাত্তার মিয়া জানান, ঘটনা শুনে ওই শিক্ষককে চাকরি থেকে ব’রখা’স্তের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*