৯৬ সালে আ.লীগের করা ওয়াদা ভাঙ্গা নিয়ে মুখ খুললেন রুমিন ফারহানা, কী ছিল সেই ওয়াদা

বাংলাদেশের অন্যতম রাজনৈতিক দল বিএনপি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না, এমনটাই জানিয়েছে। তবে শর্ত রয়েছে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন হতে হবে, তা না হলে তারা নির্বাচনে অংশ নেবে না। এদিকে বর্তমান আ.লীগ সরকারকে ক্ষমতা থেকে নামাতে বিএনপি এবং এর জোট সমর্থিত দলগুলো রাজপথে নামার ঘোষণা দিয়েছে। ইতিমধ্যে জেলায় জেলায় আন্দোলন শুরু করেছে বিএনপি। এদিকে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেছেন, নিশি রাতে আর কোনো নির্বাচন হতে দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। তাই সরকারকে আন্দোলনের মাধ্যমে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে বাধ্য করা হবে। এবার নিশিরাতের ভোট হতে দেওয়া হবে না।
সোমবার (২৯ আগস্ট) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপি আয়োজিত বন্দর এলাকার বিওসি ঘাটে বিদ্যুতের নজিরবিহীন লোডশেডিং, তেল-গ্যাসের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি এবং জ্বালানি খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেন, ৭১ থেকে ৭৫ পর্যন্ত আওয়ামী দুঃশাসন ছিল। ক্ষমতা হারানোর পর আওয়ামী লীগ জনগণের কাছে ক্ষমা চেয়ে এবং অতীতের পুনরাবৃত্তি না করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসে। কিন্তু ক্ষমতায় আসার পর সবকিছু ভুলে গিয়ে তারা হাজির হয়েছেন তাদের পুরনো রূপে। তাই দেশের মানুষ তাদের ঘৃণা করতে থাকে। পরবর্তীতে ২০০৮ সালে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসে নতুন বাকশাল প্রতিষ্ঠা করেন। পরে অবৈধভাবে দুটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, একটিতে বিনা ভোট এবং অন্যটিতে গভীর রাতে ভোট হয়। এখন তারা ইভিএম নিয়ে জালিয়াতি করতে চায়। ইভিএমে কারচুপি করা হবে না জানিয়ে তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন, ভোট হবে নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মাধ্যমে।
তিনি আরও বলেন, বিদ্যুতের এত কথা বললেন, এখন ১৫ থেকে ১৬ ঘণ্টা লোডশেডিং কেন? জ্বালানি তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধি করে যেভাবে জনগণের জীবন দুর্বিষহ করে তুলেছেন তাতে এক মুহূর্তও ক্ষমতায় থাকার অধিকার আপনার নেই।

তিনি নির্বিচারে হ”/ত্যা ও গুমের বিষয়টি তুলে ধরে বলেন, এসব পাপের জন্য আপনাদের বিচারের আওতায় আনা হবে, ইনশাআল্লাহ। বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য আবদুস সাত্তার ভূঁইয়া।

এদিকে বিএনপির নেতাকর্মীরা সরকারকে হটিয়ে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার কথা ব্যক্ত করেছেন। দলটির নেতা কর্মীরা বলছেন, ক্ষমতাসীন দল আগামী নির্বাচনে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছে গত নির্বাচনগুলোর মতো করেই। তবে সেই পরিকল্পনা সফল হলে সেটা জনগণের সাথে প্রতারণার শামিল হবে। আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে হঠাতে রাজপথে নামার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় পর্যায়ের নেতারা।

About admin

Check Also

স্কুলে ডেকে এনে প্রেমিককে জাপটে ধরে রোমান্সে মাতলেন ছাত্রী, এলাকাজুড়ে হইচই

সিনেমায় রোমান্টিক দৃশ্য হরহামেশাই দেখা যায়, যে সময় প্রেমিক প্রেমিকার মনেও রোমান্স জাগে। এটাই স্বাভাবিক। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *