কে হচ্ছেন ডেপুটি স্পিকার

গাইবান্ধা-৫ আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়ার মৃত্যুতে শূন্য হয়েছে একাদশ জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকারের পদটি। ইতোমধ্যেই তার নির্বাচনী আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে। নতুন ডেপুটি স্পিকার হচ্ছেন কে? তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে।
এদিকে, আগামী ২৮ আগস্ট সংসদ অধিবেশন ডেকেছেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ। ওই দিন বিকেল ৫টায় অধিবেশন শুরু হবে। সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতায় বসা এবারের অধিবেশনের প্রথম দিনই নতুন ডেপুটি স্পিকার নির্বাচন করা হবে।

সংবিধান অনুযায়ী, ডেপুটি স্পিকারের পদ শূন্য হওয়ার সাত কর্মদিবসের মধ্যে তা পূরণের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। তবে অধিবেশন চলমান না থাকলে পরবর্তী অধিবেশনের প্রথম বৈঠকে তা পূর্ণ করার জন্য সংসদ সদস্যরা নতুন একজন সংসদ সদস্যকে এ পদে নির্বাচিত করবেন বলে সংবিধানে বলা আছে। এ পদের জন্য কয়েকজনের নাম আলোচিত হচ্ছে।
একাদশ জাতীয় সংসদের হুইপ ও সংসদ সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে ডেপুটি স্পিকার হিসেবে ৪ জন সংসদ সদস্যের নাম পাওয়া গেছে। তারা বলছেন, ওই ৪ জনের মধ্যে থেকেই পরবর্তী ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত হতে পারে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জাতীয় সংসদের সরকার দলীয় একজন হুইপ বলেন, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শহীদুজ্জামান সরকার, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলাম, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সংসদ সদস্য শামসুল হক টুকু এবং সরকার দলীয় সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ- ওনাদের মধ্য থেকেই আসতে পারেন পরবর্তী ডেপুটি স্পিকার।

নওগাঁ-২ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য শহীদুজ্জামান সরকার দশম জাতীয় সংসদে সরকার দলীয় হুইপ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবং পরে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনবারের এ সংসদ সদস্য।
পাবনা-১ আসনের সংসদ সদস্য শামসুল হক টুকু বর্তমানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

এবি তাজুল ইসলাম ১৯৯৬ সালে প্রথমবারের মতো জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ আসনের। ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদে সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হন। পরে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ মৌলভীবাজার-৪ আসন থেকে ৬ বার নির্বাচিত হয়েছেন। ১৯৯৬ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত সংসদে সরকার দলীয় হুইপ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। পরে ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত অষ্টম জাতীয় সংসদে বিরোধী দলীয় চিফ হুইপের দায়িত্বে ছিলেন। নবম জাতীয় সংসদে সরকার দলীয় চিফ হুইপ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। দশম জাতীয় সংসদে সরকারি প্রতিশ্রুতি সম্পর্কিত কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

রেওয়াজ অনুযায়ী, অধিবেশনের শুরুতে একজন সংসদ সদস্য ডেপুটি স্পিকার হিসেবে অপর একজন সংসদ সদস্যের নাম প্রস্তাব করবেন। তার প্রস্তাবকে অন্য একজন সংসদ সদস্য সমর্থন করবেন। পরে স্পিকার প্রস্তাবটি ভোটে দেবেন। কণ্ঠ ভোটে পাস হওয়ার মধ্যদিয়ে নতুন ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত হবে।

উল্লেখ্য, গত ২২ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে মাউন্ট সিনাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মারা যান ফজলে রাব্বী মিয়া। তার মৃত্যুতে শূন্য হয়ে যায় একাদশ জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকারের পদটি। ২০১৯ সালের ৩০ জানুয়ারি একাদশ জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত হন মো. ফজলে রাব্বী মিয়া। গত ২৪ জুলাই মরহুম ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়ার সংসদীয় আসন গাইবান্ধা-৫ শূন্য ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করে জাতীয় সংসদ সচিবালয়। কোনো সংসদীয় আসন শুন্য ঘোষিত হলে ৯০ দিনের মধ্যে উপনির্বাচনের কথা রয়েছে।

About admin

Check Also

নির্বাচনে আসলে আসুক না আসলে ফাকা মাঠেই গোল: শেখ হাসিনা

নির্বাচনে অংশ নেওয়া বা না নেওয়া রাজনতিক দলের ইচ্ছাধীন বিষয় বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *